বয়েস ৭। পড়ে পাঠ ভবনে ক্লাস টুতে। অনেক কবিতা পড়ে আর বড় হয়ে কবি হবে ভাবে।

কালো মেঘ
আজকে দেখি কালো মেঘের সারি,
তারা চেঁচিয়ে আসছে হা রে রে রে বলে,
আমি দেখলাম মেঘের দেশের বাড়ি,
রাত হল, সূর্য গেল চলে।
অন্ধকার রাস্তায় হাঁটছি আমি একা,
ভয় টয় কিচ্ছু নেই মনে,
চলছি আমি, রাস্তা সব ফাঁকা,
হাঁটতে হাঁটতে গেলাম এক বনে।
অন্ধকার বনের মধ্যে খুব নির্জন,
মাঝে মাঝে শোনা যায় কার গর্জন,
হঠাৎ দেখতে পাই আলোর ঝলক,
বাজ দেখে পড়ছেনা চোখের পলক!
*

01
পাখিরা
পাখিরা সব বেরিয়েছে
তাদের বাসা ছেড়ে,
বিকেলবেলার মধ্যে তারা
আসবে ঘরে ফিরে।
এসে তারা ছানাদের
খাবারটা খাইয়ে দেবে,
পরে তারা নিজেরাও
একটু খাবার খাবে।
বাবুই পাখির বাসা দেখতে
উল্টো কুঁজোর মত,
টুনটুনির বাসা দারুণ,
দেখে সবাই থতমত।

*

ছবি: অন্তর্জা‌ল

2 thoughts on “রূপকথার কবিতা

  1. This little child is mesmerising. I have read some her unpublished paragraphs and stories too, all her works are really beyond her capability and this surprises me always. I bless her and wish to read more of her further writings.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *